Breaking »

সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের গানে কবিতায় মুজিবের জন্মশত বার্ষিকী

স্টাফ রিপোর্টার 6

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কেউ গাইলেন গান, কেউ আবৃত্তি করলেন কবিতা। আবার কেউ শুনালেন টুঙ্গিপাড়ার সেই ছোট্র খোকার জীবনের গল্প। এভাবে গানে কবিতায় কেক কেটে মুজিবের জন্মশত বার্ষিকী উদযাপন করলেন সুবিধা বঞ্চিত পথশিশুরা।

মঙ্গলবার (১৭ মার্চ) রাজধানীর এএসডির আনন্দ নিবাসে এই আয়োজন করেন অ্যাকশন ফর সোশ্যাল ডেভেলপমেন্ট (এএসডি)। অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধু প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণীর শিক্ষার্থী লামিয়া আক্তার (১০) শুনালেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শৈশব কৈশোর ও বেড়ে উঠার গল্প। বেগম নূর জাহান মেমোরিয়াল বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শেণীর শিক্ষার্থী জান্নাতুল ফেরদাউস আবৃত্তি করলেন মুজিবকে নিয়ে কবিতা। শিশুরা সমাবেত কন্ঠে শুনালেন শেখ মুজিবকে নিয়ে জনপ্রিয় গান, ‘শোন একটি মুজিবরের থেকে লক্ষ মুজিবরের কন্ঠস্বরের ধ্বনি প্রতিধ্বনি আকাশে বাতাসে উঠে রনি…বাংলাদেশ, আমার বাংলাদেশ’।

আলোচনা পর্বে শেখ মুজিবের জীবনাদর্শ নিয়ে আলোচনা করেন এএসডি নির্বাহী পরিচালক জামিল এইচ চৌধুরী, কর্মসূচি পরিচালক এমএ করিম, ডেভলপমেন্ট অব চিলড্রেন এ্যাট হাই রিস্ক (ডিসিএইচআর) প্রকল্প ব্যবস্থাপক ইউকেএম ফারহানা সুলতানা, প্রকল্প কর্মকর্তা নুর মোহাম্মদ প্রমুখ।

নির্বাহী পরিচালক জামিল এইচ চৌধুরী বলেন, ‘যে ছোট্র খোকা গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জন্ম নিয়েছিলেন ১৯১৭ সালের আজকের এই দিন। তিনি ছাত্র অবস্থা থেকেই মানুষের অধিকার নিয়ে কথা বলতেন, লড়াই করতে নিপীড়িত মানুষের মুক্তির জন্য। লড়াই সংগ্রামের মধ্যদিয়ে তিনি একদিন হয়ে উঠলেন গণমানুষের বঙ্গবন্ধু।’ এ সময় তিনি বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে স্মৃতিচারন করলেন। জানালেন ১৯৬৯ সালে তিনি যখন সুনামগঞ্জ কলেজে পড়তেন, তখন কলেজে এক অনুষ্ঠানে শেখ মুজিবকে ফুলের মালা পরিয়ে দিয়েছেন। পরবর্তীতে ১৯৭১ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে মুজিবের ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের লখো জনতার সমাবেশে অংশ নিয়েছিলেন।

অনুষ্ঠানে ভালো ফলাফলকারী ২১ জন শিশুর হাতে পুরস্কার ও বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে রচিত বই তুলে দেওয়া হয়।

প্রসঙ্গত, এএসডি ১৯৮৮ সন থেকে দেশে দারিদ্র্য দূরীকরণ, অবহেলিত ও বঞ্চিত জনগোষ্ঠী, নারীর ক্ষমতায়ন, অসহায় জনগোষ্ঠীর জন্য ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা, দুর্যোগ মোকাবেলা, মা ও শিশু স্বাস্থ্য বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ ও ঝুঁকিপূর্ণ শিশুদের সুরক্ষা জন্য কাজ করে আসছে। ব্রেড ফর দি ওয়ার্ল্ড – জার্মানীর আর্থিক সহযোগিতায় এএসডি কর্মে নিয়োজিত শিশুদের সুরক্ষা ও পথশিশুদের নিরাপদ আশ্রয় প্রদানের লক্ষ্যে “ডেভেলপমেন্ট অব চিলড্রেন এ্যাট হাই রিস্ক (ডিসিএইচআর)” নামে একটি প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। প্রকল্পের প্রধান কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে শিশুদেরকে ঝুঁকিপূর্ণ কাজ থেকে প্রত্যাহার করে উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা প্রদানের মাধ্যমে মূল ধারার প্রাথমিক শিক্ষার সাথে সম্পৃক্ত করা, দক্ষতা উন্নয়ন প্রশিক্ষণের মাধ্যমে বয়সভেদে ঝুঁকিমুক্ত কাজে শিশুদের নিয়োগ দেয়া, শিশুদের জন্য বিশ্রাম, বিনোদন ও আনন্দদায়ক খেলাধুলার আয়োজন করা এবং রাত্রিকালীন আবাসনের ব্যবস্থা করা। এসব কার্যক্রম বাস্তবায়নের জন্য প্রকল্প এলাকায় ছয়টি বিদ্যালয়, তিনটি ড্রপ-ইন-সেন্টার ও রাত্রিকালীন আবাসিক ব্যবস্থা (আনন্দ নিবাস) প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। গাবতলী এবং কমলাপুর এ শ্রমে নিয়োজিত শিশুদের জন্য দুটি লার্নিং এন্ড রিক্রিয়েশন সেন্টার প্রতিষ্ঠা পরিচালিত হচ্ছে। এর মাধ্যমে শ্রমে নিয়োজিত শিশুরা পড়াশুনা, খেলা ধুলা, বিশ্রাম, বিনোদনসহ আরও অনেক সেবা পেয়ে থাকে। এই কার্যক্রমের আওতাভুক্ত অধিকার ও সুবিধা বঞ্চিত ও মারাত্নক ঝুঁকিতে থাকা শিশুরা সুরক্ষা পাওয়ার পাশাপাশি সমাজে ভালোভাবে বেড়ে ওঠার লক্ষ্যে ন্যূনতম সেবা পাচ্ছে।

 

 রিপোর্ট »মঙ্গলবার, ১৭ মার্চ , ২০২০. সময়-৬:১৩ pm | বাংলা- 3 Chaitro 1426
রিপোর্ট শেয়ার করুন  »
Share on Facebook!Digg this!Add to del.icio.us!Stumble this!Add to Techorati!Seed Newsvine!Reddit!
Editor: Abul Hossain Liton, DhakaOffice:Nahar Monzil,Box Nagar, Dhemra, Dhaka.Head Office:Thana Road,Moheshpur,Jhenaidah.Copyright © 2011 » All rights reserved http/shesherkhobor.com, mob: 8801711245104. Email: shesherkhobor@gmail.com 
☼ Provided By  websbd.net  » System  Designed by HELAL .
GO TOP