Breaking »

Warning: include(/home/shesherk/public_html/wp-content/themes/shesherkhobor/single-sidebar.php): failed to open stream: No such file or directory in /home/shesherk/public_html/wp-content/themes/shesherkhobor/single.php(2) : eval()'d code(1) : eval()'d code on line 2

Warning: include(): Failed opening '/home/shesherk/public_html/wp-content/themes/shesherkhobor/single-sidebar.php' for inclusion (include_path='.:/usr/lib/php:/usr/local/lib/php') in /home/shesherk/public_html/wp-content/themes/shesherkhobor/single.php(2) : eval()'d code(1) : eval()'d code on line 2

মোড়েলগঞ্জে স্বাধীনতার ৪৩ বছরেও গ্রাম পুলিশের মূল্যায়ন হয়নি

 

এম.পলাশ শরীফ,মোড়েলগঞ্জ অফিস: বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জ উপজেলার স্বাধীনতার ৪৩ বছর পার হতে চললেও ভাগ্যের কোন পরিবর্তন হয়নি গ্রাম পুলিশের। তাই তারা পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে।

সময়ের পরিবর্তনে সব কিছুর পরিবর্তন হলেও পরিবর্তন হয়নি গ্রাম পুলিশের। স্বাধীনতার এতটি বছর পরেও পায়নি তারা অর্থনৈকি মুক্তি। ফলে মানবেতর জীবন যাপন করছে গ্রাম পুলিশরা। তাদের দায়িত্ক কর্তকব্য পরিশ্রম বেশি হলেও পারিশ্রমিক মজুরী নামমাত্র। দ্রব্যমূল্য ঊর্ধ গতির কারনে এদেশর গ্রাম পুলিশের জীবন চিত্র বড়ই করম্নন। তারা পারে না অন্য কোথাও শ্রম দিতে, পারে না এই পেশায় নিযুক্ত থকে অর্থনৈতিক ভাবে সাবলম্বী হতে। ফলে অভাব আর দারিদ্র তাদের নিত্য সঙ্গী। সকাল থেকে সারাদিন এমনকি অনেক রাত পর্যন্ত চলে তাদের হুকুম পালনের পালা। চেয়ারম্যান, মেম্বর এমনটি উপজেলা নির্বাহী অফিসারের আদেশ পালন করতে হয় গ্রাম পুলিশদের। তা ছাড়া পুলিশের পাশাপাশি নৈশ্যকালীন পাহারাও দিতে হয়। ইউনিয়ন পরিষদের শামিত্মশৃঙ্খলা রক্ষার জন্য ব্রিটিশ আমল হতে গ্রাম পুলিশ তথা চৌকিদার প্রথা প্রবর্তিত হলেও সর্বশেষ ১৯৮৩ সালে বাংলাদেশ সরকার অধ্যাদেশের কার্যবলি ও চাকুরি নিয়ন্ত্রন হয়ে আসছে। এই অধ্যাদেশের বলে গ্রাম পুলিশ বা চৌকিদারের বছরে একবার বিনামূল্য ইউনি ফরম জুতা, মোজা, ছাতা, হারিকেন, টর্চলাইটসহ দ্রব্য সামগ্রী সরকার থেকে সরবারহ করা হয়। মোড়েলগঞ্জ উপজেলার ১৬ টি ইউনিয়নে ১৮ জন দফাদারসহ ১৪৫জন মহালদার রয়েছেন। দফাদার প্রতি মাসে দুই হাজার একশত টাকা এবং মহলদারারা এক হাজার নয়শত টাকা করে ভাতা পেয়ে থাকেন। সম্প্রতি সময়ে প্রতিমাসে সরকারী বেতনের সাথে ইউনিয়ন পরিষদ কৃত প্রদত্ত ১% ভাতা যৌথভাবে পেয়ে থাকেন তারা। দেশের আইনশৃংখলা পরিস্থিতি ইউনিয়নের কর আদায় জন্ম মৃত্যুর তথ্য সংগ্রহ সপ্তাহে শেষে থানায় হাজিরা থানা পুলিশকে সহায়তা করা ইত্যাদি কাজে গ্রাম পুলিশরা পুরো দায়িত্ব পালন করে থাকেন। সরকারী এতসব দায়িত্ব পালন করেও একজন লেবার শ্রমিকের মূল্যও দেওয়া হয়না অবহেলিত গ্রাম পুলিশদের।

এ ব্যাপারে উপজেলা বারইখালী ইউনিয়ন পরিষদের দফাদার মো: আবুল কালাম এম.পলাশ শরীফকে জানান, গ্রাম পুলিশদের নিয়ে কেউ ভাবেনা, বেতন ভাতা কম হলেও রেশন ভাতাসহ অন্যান্য সুযোগ সুবিদা থেকে বঞ্চিত এ ডিজিটাল যুগের গ্রাম পুলিশরা। চাকুরি শেষে তাদের পেনশনের কোন ব্যাবস্থাও নেই। সমাজের আর দশ জনের মত বেচেঁ থাকতে অনেক কষ্ট হয় তাদের কেউ তাদের মৌলিক চাহিদাগুলো নিয়ে ন্যূনতম চিমত্মা করেনা। সরকারী কর্মচারীর মতো সকল প্রকার সুযোগ সুবিদা বা মৌলিক চাহিদাগুলো বাসত্মবায়নের জন্য সংশিস্নষ্ট দপ্তরসহ প্রধান মন্ত্রীর জরম্নরী হসত্মক্ষেপ কামনা করেন তারা।

 রিপোর্ট »সোমবার, ২৩ জুন , ২০১৪. সময়-১১:১১ pm | বাংলা- 9 Ashar 1421
WEBSBD.NET
রিপোর্ট শেয়ার করুন  »
Share on Facebook!Digg this!Add to del.icio.us!Stumble this!Add to Techorati!Seed Newsvine!Reddit!
EDITOR;ABUL HOSSAIN LITON, DHAKA OFFICE; NAHAR MONZILl,BOX NAGAR,DEMRA,DHAKA.OFFICE;MAHESHPUR,JHENAIDAH,BANGLADESH. Copyright © 2011 » All rights reserved http/shesherkhobor.com, MOB: 8801711245104,Email:shesherkhobor@gmail.com 
☼ Provided By  websbd.net  » System  Designed by HELAL .
GO TOP