Breaking »

Warning: include(/home/shesherk/public_html/wp-content/themes/shesherkhobor/single-sidebar.php): failed to open stream: No such file or directory in /home/shesherk/public_html/wp-content/themes/shesherkhobor/single.php(2) : eval()'d code(1) : eval()'d code on line 2

Warning: include(): Failed opening '/home/shesherk/public_html/wp-content/themes/shesherkhobor/single-sidebar.php' for inclusion (include_path='.:/usr/lib/php:/usr/local/lib/php') in /home/shesherk/public_html/wp-content/themes/shesherkhobor/single.php(2) : eval()'d code(1) : eval()'d code on line 2

ঝিনাইদহে বাক ও শ্রবণ প্রতিবন্ধীদের জন্য স্কুল

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি, ২ অক্টোবর :

আমার মেয়ে এখন অস্পষ্ট ভাষায় কথা বলতে পারে, শুনতেও পায়। এটা আমাদের পরিবারের কাছে ছিল স্বপ্নের মতো। কথাগুলো বললো বাক ও শ্রবন প্রতিবন্ধী কিশোরী তনুশ্রী রাণীর মা কবিতা রাণী। একই কথা বললো অপর প্রতিবন্ধী ইতির মা কোমেলা খাতুন। এদের সবার প্রতিবন্ধী সমত্মান ঝিনাইদহ শহরের ষাটবাড়ীয়ায় অবস্থিত এ্যাকশান ইন ডেভলপমেন্ট-এইড পরিচালিত একটি আনানুষ্ঠানিক স্কুলে। এ স্কুলে শুধু বাক ও শ্রবণ প্রতিবন্ধী শিশু কিশোর পড়াশোনা করছে ২০০৬ সাল থেকে। নেদারল্যান্ড ভিত্তিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ষ্টিচিং লিলিয়ানা ফন্ডম এ স্কুলের গৃহ নির্মাণসহ প্রতিবন্ধী শিশুদের জন্য আর্থিক সহায়তা দিচ্ছে।

কবিতা রাণী জানায়, জন্ম থেকে বাক ও শ্রবণ প্রতিবন্ধী তনুশ্রীকে ঢাকাস্থ হাইকেয়ার থেকে শ্রবণমাত্রা নিরূপন করে শ্রবণযন্ত্র দেয়ার পর থেকে যে ক্রমশঃ কানে শুনতে পাচ্ছে। এখন তার কানের শ্রবণ মাত্রা স্বাভাবিক। কথা বলানো ও পড়াশোনার জন্য তাকে এইড প্রতিবন্ধী স্কুলে ভর্তির পর থেকে ক্রমশ সে কথা বলতে পারে, লিখতেও পারে। দিন দিন তার কথা স্পষ্ট হয়ে উঠছে। দ্রুত তনুশ্রীর কথাবার্তা প্রায় স্বাভাবিক হয়ে আসবে। কোমেলা খাতুন তার মেয়ে ইতির জন্য প্রায় একই ধরনের বললেন।

শিক্ষাদানেরত এইড প্রতিবন্ধী বিভাগের প্রধান সুরাইয়া পারভীন শিল্পী জানান, ২৫ জন বাক ও শ্রবণ প্রবিতন্ধী শিক্ষার্থী তার কাছে পড়াশোনা করছে। এদের সবার অবস্থা ক্রমশ উন্নতির দিকে। এখানে আরো কিছুদিন পাঠ গ্রহণ শেষে তারা অন্য স্কুলে ভর্তি হতে পারবে।

শিল্পী জানান, ১৯৯৬ সালে এইড প্রতিষ্ঠিত হবার পর এলাকার অনগ্রসর ও পিছিয়ে পড়া মানুষ বিশেষ করে নারী, শিশু ও প্রতিবন্ধীদের নিয়ে কাজ করে আসছে। এইডের অর্থোপেডিক ওয়ার্কসপে প্রস্ত্ততকৃত বিভিন্ন উপকরণ দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের প্রতিবন্ধীতা বিষয়ক কার্যক্রম পরিচালনাকারী সংস্থা ও প্রতিবন্ধীদের কাছে বিক্রি করা হয়। হত-দরিদ্র প্রতিবন্ধীদের মাঝে এসব উপকরণ বিনামূল্যে সরবরাহ করা হয়।

বয়স্ক প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের প্রশিক্ষণের পর আয়বৃদ্ধিমূলক কাজে আত্মনির্ভরতার জন্য আর্থিক সহায়তা দেয়া হয়ে থাকে। এছাড়া ঠোটকাটা, তালুকাটা রোগীর অস্ত্রপচার বিভিন্ন সংস্থার সহায়তায় বিনামূল্যে করানো হয়। মিলন নামের এক তরুণের হার্টের দুটি ভাল্বই বিনামূল্যে প্রতিস্থাপন করা হয়েছে। সে এখন সম্পূর্ণ স্বাভাবিক জীবন যাপন করছে।

এইডের নির্বাহী পরিচালক আমিনুল ইসলাম বকুল জানান, দেশের এক বিশাল জনসংখ্যা হলো প্রতিবন্ধী। এদের বাদ দিয়ে কোন এলাকার সার্বিক উন্নয়ন সম্ভব নয় বিধায় প্রতিবন্ধীতা বিষয়ক কর্মসূচীকে এইড প্রাধান্য দিয়ে কাজ করে আসছে।

বাংলাদেশ সরকার এবং দেশী-বিদেশী বেশ কয়েকটি সংস্থা প্রতিবন্ধী উন্নয়ন কর্মসূচী বাসত্মবায়নে সহায়তা করে আসছে। এইডের প্রশিক্ষণ কেন্দ্র নির্মাণে জাপান সরকার এবং অর্থনৈতিক ওয়ার্কশপ নির্মাণে জার্মান সরকার আর্থিক সহায়তা দিয়েছে বলে নির্বাহী পরিচালক জানান।

 

 রিপোর্ট »বৃহস্পতিবার, ৩ অক্টোবার , ২০১৩. সময়-৮:১৬ pm | বাংলা- 18 Ashin 1420
WEBSBD.NET
রিপোর্ট শেয়ার করুন  »
Share on Facebook!Digg this!Add to del.icio.us!Stumble this!Add to Techorati!Seed Newsvine!Reddit!
EDITOR;ABUL HOSSAIN LITON, DHAKA OFFICE; NAHAR MONZILl,BOX NAGAR,DEMRA,DHAKA.OFFICE;MAHESHPUR,JHENAIDAH,BANGLADESH. Copyright © 2011 » All rights reserved http/shesherkhobor.com, MOB: 8801711245104,Email:shesherkhobor@gmail.com 
☼ Provided By  websbd.net  » System  Designed by HELAL .
GO TOP