Breaking »

Warning: include(/home/shesherk/public_html/wp-content/themes/shesherkhobor/single-sidebar.php): failed to open stream: No such file or directory in /home/shesherk/public_html/wp-content/themes/shesherkhobor/single.php(2) : eval()'d code(1) : eval()'d code on line 2

Warning: include(): Failed opening '/home/shesherk/public_html/wp-content/themes/shesherkhobor/single-sidebar.php' for inclusion (include_path='.:/usr/lib/php:/usr/local/lib/php') in /home/shesherk/public_html/wp-content/themes/shesherkhobor/single.php(2) : eval()'d code(1) : eval()'d code on line 2

বাহরাইনে নিহত ১৩ জনের লাশ ঢাকায় পৌঁছেছে

ডেস্ক রিপোর্ট :

বাহরাইনে আগুনে পুড়ে নিহত ১৩ বাংলাদেশির লাশ ঢাকায় পৌঁছেছে। এমিরেটস এয়ারলাইনসের ইকে-৮৩৮ বিমানে করে আজ মঙ্গলবার সন্ধ্যা পৌনে সাতটার দিকে লাশগুলো শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছায়। এ সময় লাশ নিতে এসে কান্নায় ভেঙে পড়েন স্বজনেরা।
এ সময় প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব হজরত আলী, জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর অতিরিক্ত মহাপরিচালক মাছরুর ও পরিচালক (কল্যাণ) মোহসিন চৌধুরী বিমানবন্দরে উপস্থিত ছিলেন। তাঁরা মরদেহগুলো পরিবারের সদস্যদের বুঝিয়ে দেন।
বাহরাইনের রাজধানী মানামার মুখারকা এলাকায় ১১ জানুয়ারি আগুনে পুড়ে ওই বাংলাদেশিরা নিহত হন। তাঁদের মধ্যে তিনজন চট্টগ্রামের। তাঁরা হলেন, চট্টগ্রামের বোয়াখালীর চরখিজিপুর এলাকার ছগির আহমেদের ছেলে নাজির আহমেদ, পটিয়ার পাথুয়া গ্রামের রশিদ আহমেদের ছেলে মাহবুব আলম ও মারিয়াপাড়ার আবদুল আজিজের ছেলে মোহাম্মদ জামাল।
পাঁঁচজনের বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলায়। তাঁরা হলেন, ওয়ালী গ্রামের আবু নাছের মিয়ার ছেলে জসিম, কাইতলার শহীদ মিয়ার ছেলে সাইফুল ইসলাম ওরফে সুজন ও স্বপন, গুড়িগ্রামের আবুল বাশারের ছেলে আনোয়ার হোসেন ও ভৈরবনগরের চাঁদ মিয়ার ছেলে জারু মিয়া।
নিহতদের মধ্যে তিনজন চাঁদপুরের। তাঁরা হলেন কচুয়ার নওয়াপাড়ার শাহ আলমের দুই ছেলে শাহাদাত হোসেন ও টিটু আহমেদ এবং মতলবের আবদুস সাত্তার খানের ছেলে শাহিন খান।
বাকি দুজন হলেন নোয়াখালীর সোনাইমুড়ির কাশীপুর এলাকার আবদুর রহিমের ছেলে ওসমান গনি এবং কুমিল্লার সদর দক্ষিণের জয়নাল আবেদিনের ছেলে মফিজুল ইসলাম।
বিএমইটির পরিচালক মোহসিন চৌধুরী 654 বলেন, বিমানবন্দরে প্রত্যেকটি পরিবারকে লাশ বুঝিয়ে দেওয়া হচ্ছে। লাশ দাফনের জন্য প্রতিটি পরিবারকে বিমানবন্দরেই ৩৫ হাজার টাকা করে দেওয়া হচ্ছে। এ ছাড়া প্রতিটি পরিবারকে পরে দুই লাখ টাকা করে আর্থিক অনুদান দেবে সরকার। এ ছাড়া নিহত ব্যক্তিরা যেসব কোম্পানিতে চাকরি করতেন সেখান থেকেও ক্ষতিপূরণ আদায়ের কাজ করছে দূতাবাস।
এ ছাড়াও অলি আহমেদ নামের অপর এক বাংলাদেশির লাশও আজ বাহরাইন থেকে ঢাকায় পৌঁছেছে। তাঁর বাড়ি কুমিল্লায়। তিনি গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর এক দুর্ঘটনায় মারা যান।

 রিপোর্ট »মঙ্গলবার, ২২ জানুয়ারী , ২০১৩. সময়-১১:০১ pm | বাংলা- 9 Magh 1419
WEBSBD.NET