Breaking »

Warning: include(/home/shesherk/public_html/wp-content/themes/shesherkhobor/single-sidebar.php): failed to open stream: No such file or directory in /home/shesherk/public_html/wp-content/themes/shesherkhobor/single.php(2) : eval()'d code(1) : eval()'d code on line 2

Warning: include(): Failed opening '/home/shesherk/public_html/wp-content/themes/shesherkhobor/single-sidebar.php' for inclusion (include_path='.:/usr/lib/php:/usr/local/lib/php') in /home/shesherk/public_html/wp-content/themes/shesherkhobor/single.php(2) : eval()'d code(1) : eval()'d code on line 2

প্রচন্ড শীতে সাতক্ষীরার জনজীবিন বিপর্যস্ত

এম.বেলাল হোসাইন, সাতক্ষীরা ঃ উত্তরের হিমেল হাওয়া আর সূর্যের দেখা না পাওয়ায় কমেছে তাপমাত্রা। হাড় কাঁপানো শীতে কাঁপছে সাতক্ষীরাসহ আশে পাশের এলাকা। শনিবার কয়েকঘন্টা সূর্যের মুখ দেখা গেলেও রোববার সারাদিন সূর্যের মুখ দেখা যায়নি। শীতের প্রকোপ বৃদ্ধি পাওয়ায় ছিন্নমূল মানুষের জীবনে নেমে এসেছে চরম দুর্ভোগ। গরম পোষাকের কদর বেড়েছে। শহরের ফুটপাতের দোকানগুলোতে ধনী-গরিব, শিশু, কিশোর, যুবক,যুবতি সহ বিভিন্ন বয়সের ক্রেতাদের ভীড় লক্ষ্য করা গেছে। শহর ও গ্রামের অনেক জায়গায় আগুনের কুন্ডলি তৈরি করে তার চারপাশে বসে তাপ পোহানোর দৃশ্য ছিলো চোখে পড়ার মতো। প্রচন্ড শীতে নিতান্ত প্রয়োজন না হলে কেউ বাইরে বের হচ্ছে না। শৈত্য প্রবাহ জেলার বানভাসী এলাকার ছিন্নমূল মানুষের কষ্ট বাড়িয়ে দিয়েছে। আইলা দূর্গত সাতক্ষীরার শ্যামনগরের পদ্ম পুকুর, গাবুরা, বুড়িগোয়ালিনী, আশাশুনির প্রতাপনগর সহ বিভিন্ন এলাকার হত-দরিদ্র পরিবারে শীতার্ত মানুষের আর্তনাদ শোনা যাচ্ছে বলে জানান এলাকাবাসী। শীতার্ত মানুষের জন্য ইতোমধ্যে ঢাকার ব্যাবিলন গ্রুপ জেলার শ্যামনগরে আইলা দূর্গত এলাকায় ১ হাজার পরিবারের মাঝে চাদর ও কম্বল বিতরণ করেছে। এছাড়া বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ ভোমরা বিওপি ক্যাম্পের সদস্যরা ছিন্নমূল মানুষের পাশে শীতবস্ত্র বিতরণ করেছে।

জেলার তালা উপজেলার খেশরা, জালালপুর, তালা সদর, তেঁতুলিয়া, কুমিরা সহ বিভিন্ন এলাকার বানভাসী পরিবারে শীতের কামড় তীব্র আকার ধারন করেছে বলে এলাকাবাসী জানিয়েছেন।

জেলা ভূমিহীণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক আলীনুর খান বাবুল বলেন, সাতক্ষীরায় প্রায় এক লক্ষ ভূমিহীন পরিবারে শীতার্ত মানুষের আর্তনাদ উঠেছে। এসব পরিবারে শিশু ও বৃদ্ধরা সীমাহীন কষ্ট পাচ্ছে বলে জানান তিনি।

এ অবস্থায় সাতক্ষীরা আবহাওয়া অফিস কোন সুসংবাদ দিতে পারে নি।

আবহাওয়া অফিস বলছে, শীতের প্রকোপ সহসা কমছে না। শৈত্য প্রবাহ প্রায় সপ্তাহ জুড়ে থাকবে বলে ধারনা করেছে আবহাওয়া অফিস। আবহাওয়া অফিসের উচ্চ পর্যবেক্ষক মাজেদুল হক জানান, আবহাওয়া অফিসের রেকর্ড অনুযায়ী গত এক সপ্তাহে তাপমাত্রা কমেছে গতকাল রোববার। এদিন তাপমাত্রা ছিল ১১.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এর আগে গত ১৫ ডিসেম্বর ১৮.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, ১৬ ডিসেম্বর ১৬.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস, ১৭ ডিসেম্বর ১৫.০ -ডিগ্রি সেলসিয়া, ১৮ ডিসেম্বর ১৪.৪-ডিগ্রি সেলসিয়াস, ১৯ ডিসেম্বর ১৩.৫ -ডিগ্রি সেলসিয়াস, ২০ ডিসেম্বর ১২.৬ -ডিগ্রি সেলসিয়াস, ২১ ডিসেম্বর ১৩.৩, ২২ ডিসেম্বর ১২.০ -ডিগ্রি সেলসিয়াস। এবং প্রচন্ড শৈত্য প্রবাহের মধ্যেদিয়ে বাতাসের গতি বেগ ছিল ঘন্টায় ৬/৫কিলোমিটার। বাতাসের স্বাভাবিক গতি ঘন্টায় ৩ কিলোমিটার।

এদিকে শৈত্য প্রবাহে কর্মজীবি মানুষেরাও কাজ কর্ম করতে পারেনি। জেলা মটর সাইকেল চালক এ্যাসোসিয়েশনের সদস্য তরিকুল ইসলাম জানান, প্রচন্ড শৈত্য প্রবাহের কারণে চালকরা মটর সাইকেল চালাতে চাননি। এমনকি যাত্রীরাও মটর সাইকেলে উঠতে চাননি। ফলে তাদের অসল দিন কেটেছে।

অপর দিকে জেলার ভ্যান রিক্সা চালকরা ও বসে বসে সারা দিন কাটিছে, ভ্যান চালক এরশাদ আলী জানান, প্রচন্ড শীতে একান্ত প্রয়োজন ছাড়া কেউ বাইরে আসছে না জেনেও সংসার চালনার জন্য ভ্যান নিয়ে শহরে এসেছিলাম কিন্তু শহর ছিল ফাঁকা। যদিও দুএকজন এসেছিলো তারা ভ্যানে উঠতে চাননি। একই কথা বলেন ইঞ্জিন ভ্যান চালক আবু মুসা। তিনি বলেন, প্রচন্ড শীতের কারণে আজ কোন যাত্রীই ইঞ্জিন ভ্যানে উঠতে চাননি। বেশিরভাগ যাত্রীরা বাসে কিংবা মহিন্দ্র ও ইজিবাইকে চলাচল করেছে।

এদিকে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মোঃ সোলায়মান আলী জানান, শৈত্য প্রবাহের এই অবস্থা বলবত থাকলে কৃষির উপর ও এর বিরুপ প্রভাব পড়তে পারে। এমনকি বীজ তলার ধানের পাতা হলুদ হয়ে যেতে পারে বলে মন্তব্য করেন তিনি। তবে সকাল ও বিকালে বীজ তলার পানি পাল্টালে এ সমস্যার সমাধান হতে পারে।

অন্যদিকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালসহ বিভিন্ন ক্লিনিক সূত্রে জানাযায়, শৈত্য প্রবাহে জেলার শ্বাস কষ্ট রোগীদের শবাস কষ্ট বৃদ্ধি পেয়েছে। শিশুদের নিউমোনিয়া আক্রান্তের সংখ্যাও বৃদ্ধি পেয়েছে। এছাড়া সর্দি-কাশি, জ্বরসহ ঠান্ডা জনিত রোগের প্রকোপ বৃদ্ধি পেয়েছে।

 

 

০১৭৫৯ ৫৬৮৮০

 রিপোর্ট »রবিবার, ২৩ ডিসেম্বার , ২০১২. সময়-১০:২৩ pm | বাংলা- 9 Poush 1419
WEBSBD.NET
রিপোর্ট শেয়ার করুন  »
Share on Facebook!Digg this!Add to del.icio.us!Stumble this!Add to Techorati!Seed Newsvine!Reddit!
EDITOR;ABUL HOSSAIN LITON, DHAKA OFFICE; NAHAR MONZILl,BOX NAGAR,DEMRA,DHAKA.OFFICE;MAHESHPUR,JHENAIDAH,BANGLADESH. Copyright © 2011 » All rights reserved http/shesherkhobor.com, MOB: 8801711245104,Email:shesherkhobor@gmail.com 
☼ Provided By  websbd.net  » System  Designed by HELAL .
GO TOP