Breaking »

Warning: include(/home/shesherk/public_html/wp-content/themes/shesherkhobor/single-sidebar.php): failed to open stream: No such file or directory in /home/shesherk/public_html/wp-content/themes/shesherkhobor/single.php(2) : eval()'d code(1) : eval()'d code on line 2

Warning: include(): Failed opening '/home/shesherk/public_html/wp-content/themes/shesherkhobor/single-sidebar.php' for inclusion (include_path='.:/usr/lib/php:/usr/local/lib/php') in /home/shesherk/public_html/wp-content/themes/shesherkhobor/single.php(2) : eval()'d code(1) : eval()'d code on line 2

দামুড়হুদার জয়রামপুর রেলস্টেশনের ভবনগুলো ধ্বংসের মুখে

মেহেদী হাসান তুহিন , দামুড়হুদা (চুয়াডাঙ্গা) প্রতিনিধিঃ

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার একসময়ের বিখ্যাত জয়রামপুর রেলস্টেশনের দৃষ্টিনন্দন ভবনগুলো বর্তমানে ধববংসের দোর গোড়ায় এসে দাঁড়িয়ে আছে। যে কোনো মূহূর্তে ধসে পড়তে পারে স্টেশনের মূল ভবনের অবকাঠামোগুলো।

জানা গেছে, ভারতের পশ্চিমবঙ্গের শিয়ালদাহ থেকে কুষ্টিয়ার জগতি পর্যন্ত ১৮৬২ সালে রেলপথ চালু হলে এ স্টেশনটি তখন নির্মিত হয়। ১৯৪৭ সালে দেশ বিভাগের পর ভারতের সঙ্গে রেলপথে প্রসার কমতে থাকে। ১৯৬৫ সালে পাক-ভারত যুদ্ধ শুরু হলে ভারতের সঙ্গে ট্রেন যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়। পরবর্তী সময়ে দর্শনা থেকে খুলনা পর্যন্ত রেলপথ সমপ্রসারণ করে উপজেলার দর্শনা জংশনে সংযোগ করা হয়। স্বাধীনতার পরে এ স্টেশনটির আজ পর্যন্ত কোনো উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি। ফলে অনেক সুবিধা থেকে থেকে পিছিয়ে পড়েছে এ জনপদের রেল যাত্রীরা। স্টেশনটি নির্মাণের পর ইতিমধ্যে ১৫০ বছরে পা রেখেছে। খুলনা অঞ্চলের রেলকে কোনো সুযোগ-সুবিধা দেওয়া হয়নি। রেলের অবকাঠামোর উন্নয়ন করা হয়নি। আধুনিকায়ন করা হয়নি রেলের কোচ, ইঞ্জিন বা লোকোমটিভ। সংস্কার করা হয়নি রেলের সিগন্যালিং ও টিকিটং সিস্টেমকে।

খুলনা অঞ্চলের রেলকে আধুনিকায়ন করতে যোগাযোগ মন্ত্রণালয় ২০০৭ সালে অক্টোবর একটি প্রকল্প চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য পরিকল্পনা কমিশনে পাঠায়। ২০০৭ সালের জুলাই থেকে ২০০৯ সালের জুন পর্যন্ত এ খাতে প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয়েছিল ৪০ কোটি টাকা। পরবর্তী সময়ে ব্যয় বৃদ্ধি করে প্রকল্পের মেয়াদ বাড়ানো হয়। ডিজাইন অনুযায়ী, প্রকল্পটির ব্যয় ৭৯ কোটি ৩ হাজার ৭৪৬ কোটি টাকা বৃদ্ধি করা হয়। কাজের মেয়াদ ছিল ২০১২ সালের জুন পর্যন্ত। কিন্তু আজ পর্যন্ত তা আলোর মুখ দেখিনি। বর্তমানে খুলনা থেকে ৭টি রুটে ১০টি রেল চলাচল করছে। ওই রেলগুলো জয়রামপুর রেলস্টেশন দিয়ে নিয়মিত চলাচল করছে। বর্তমানে খুলনাগামী সব যাত্রীবাহী ট্রেন এবং ঢাকা-কালকাতা মৈত্রী এক্সপ্রেস এ স্টেশন দিয়ে চলাচল করে। বর্তমানে জয়রামপুর রেলস্টেশনে রকেট, মহানন্দা ও নকশিকাঁথা নামে বেসরকারি খাতে ট্রেনের স্টপেজ বিদ্যমান আছে। জয়রামপুর স্টেশনপাড়ার পিয়ার মহম্মদ, বাবলু, আবু সাঈদ ও খায়ের আলী বলেন, ১৫০ বছরের স্টেশনের মূল অবকাঠামোগুলো জরাজীর্ণ। দীর্ঘদিন কোনো সংস্কার না থাকায় স্টেশনের ওভারব্রিজ, বিশ্রামাগার, টয়লেট ধ্বংস হয়ে গেছে। স্টেশনের বড় হলঘর, স্টেশনমাস্টারের অফিস রুম যে কোনো মুহূর্তে ধসে পড়তে পারে। অবিশ্বাস্য হলেও সত্য, এ স্টেশনে কোনো স্টাফ নেই। স্টাফ কোয়র্টারগুলোরও বেহালদশা। অনেকেগুলো আবার ধসে পড়েছে। বাকিগুলো ধসে পড়ার উপক্রম হয়েছে। প­স্নাটফর্মের অবস্থা দিনকে দিন করুণরূপ ধারণ করছে। জনবহুল রেলগেটে রেল আসতে দেখে স্থানীয় জনগণ রেলগেটটি বন্ধ করে। রেলগেটে স্থায়ী কোনো গেটম্যান না থাকায় যে কোনো মুহূর্তে দুর্ঘটনার আশঙ্কা রয়েছে। পড়শি নামে সামাজিক স্বেচ্ছাসেবক সংগঠনের যুগ্ম-সম্পাদক জহুরুল ইসলাম বলেন, এক সময়ের ব্যস্ততম জয়রামপুর রেলস্টেশন আজ অবহেলায় অযত্নে-অনিয়মে করুণ দশায় পরিনত হয়েছে। স্টেশনটির সংস্কার,স্টেশনমাস্টার পূর্ণ নিয়োগ, আন্তনগর ট্রেনের স্টপেজ এলাকাবাসীর দীর্ঘ দিনের দাবি। স্টেশনটির মূল অবকাঠামো ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষা করতে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ নজর দিলে এ রুটে চলাচলকারী সব টেনের যাত্রী সংখ্যা বৃদ্ধি পাবে। সেই সঙ্গে যাত্রীরা অল্প খরচে নিজ গন্তব্যে পৌঁছাতে পারবে।

 রিপোর্ট »সোমবার, ১০ ডিসেম্বার , ২০১২. সময়-৯:২৪ pm | বাংলা- 26 Agrohayon 1419
WEBSBD.NET
রিপোর্ট শেয়ার করুন  »
Share on Facebook!Digg this!Add to del.icio.us!Stumble this!Add to Techorati!Seed Newsvine!Reddit!
EDITOR;ABUL HOSSAIN LITON, DHAKA OFFICE; NAHAR MONZILl,BOX NAGAR,DEMRA,DHAKA.OFFICE;MAHESHPUR,JHENAIDAH,BANGLADESH. Copyright © 2011 » All rights reserved http/shesherkhobor.com, MOB: 8801711245104,Email:shesherkhobor@gmail.com 
☼ Provided By  websbd.net  » System  Designed by HELAL .
GO TOP