Breaking »

Warning: include(/home/shesherk/public_html/wp-content/themes/shesherkhobor/single-sidebar.php): failed to open stream: No such file or directory in /home/shesherk/public_html/wp-content/themes/shesherkhobor/single.php(2) : eval()'d code(1) : eval()'d code on line 2

Warning: include(): Failed opening '/home/shesherk/public_html/wp-content/themes/shesherkhobor/single-sidebar.php' for inclusion (include_path='.:/usr/lib/php:/usr/local/lib/php') in /home/shesherk/public_html/wp-content/themes/shesherkhobor/single.php(2) : eval()'d code(1) : eval()'d code on line 2

বন্যায় বগুড়ায় ১৫ কোটি টাকার সম্পদ ক্ষয়ক্ষতি

গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ  বগুড়ার সারিয়াকান্দিতে যমুনা ও বাঙ্গালী নদীর পানি কমতে থাকায় সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে। বন্যার পানি কমতে থাকায় বন্যা কবলিত এলাকায় বিভিন্ন রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। উপজেলা প্রশাসন বলছে এবার বন্যায় উপজেলার ১১টি ইউনিয়নে প্রায় ১৫ কোটি টাকার সম্পদ ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।সম্প্রতি বগুড়ার সারিয়াকান্দি উপজেলায় অকাল বন্যায় বসত বাড়ি, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, আমন আবাদ, শাক সবজি, ডাল ও মরিচের আবাদের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়। এরসাথে গত কয়েকদিনের যমুনা নদীর অব্যাহত ভাঙ্গনের ফলে চন্দনবাইশার নির্মাণাধীন ইউনিয়ন কমপেস্নক্স ভবন, ডিগ্রী কলেজ, নওখিলা পিএন উচ্চ বিদ্যালয়, আয়েশা ওসমান বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও ২টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় নদী গর্ভে বিলীণ হয়ে যাওয়ায় এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের হাজার হাজার ছাত্র/ছাত্রীর লেখাপাড়া অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। এছাড়াও চন্দনবাইশা হাটসহ সেখানে বসবাসরত ৫শতাধিক বাড়ীঘর নদীর গর্ভে বিলীন হয়ে যাওয়ায় ব্যবসায়ী ও বাসিন্দারা চরম দূর্ভোগে দিন কাটাচ্ছে। বন্যা ও নদী ভাঙ্গনে এলাকার লোকজন ক্ষতিগ্রস্থ হলেও সরকারি ভাবে কোন বরাদ্দ না থাকায় ক্ষতিগ্রসত্ম পরিবারগুলো সহায়তা পাচ্ছে না। উপজেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, এবারের বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ ইউনিয়ন গুলো হচ্ছে চন্দনবাইশা, কামালপুর, বোহাইল, ভেলাবাড়ী, কর্ণিবাড়ী, সারিয়াকান্দি, নারচী, হাটশেরপুর, কাজলা, চালুয়াবাড়ী ও ফুলবাড়ী। ক্ষতিগ্রস্থ বাড়ী ৬০০টি, ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা ১৫ বর্গ কিলোমিটার, ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের সংখ্যা ৩৮ হাজার ৫শত ২৬, ক্ষতিগ্রস্থ লোকসংখ্যা ১ লক্ষ ২ হাজার ৩শ ৯০, সম্পূর্ণ ক্ষতিগ্রস্থ বাড়ী ৬০০টি, আংশিক ক্ষতিগ্রসত্ম বাড়ী ১০০ টি, আমন, শাকসবজি, মরিচ ও ডালের আবাদের ক্ষতিগ্রস্থ জমির পরিমান ১৩ হাজার ৯শ ১৫ হেক্টর। ক্ষতিগ্রস্থ কৃষক পরিবার ৩৮ হাজার ৫শ জন। ক্ষতিগ্রস্থ রাসত্মা ৪ কিলোমিটার বন্যা নিয়ন্ত্রন বাধ হলো ৩.৫০ কিলোমিটার, ক্ষতিগ্রস্থ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ৫টি, ক্ষতিগ্রস্থ মসজিদ ৩টি, টিউবওয়েল ৩০০টি, পুকুর জলাশয় ২০টি। টাকার অংকে সম্পূর্ণ ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ ১৫ কোটি টাকা।

সারিয়াকান্দি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জিলস্নুর রহমান খান জানান, সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে। তবে কিছু এলাকায় বন্যা পরিবর্তি রোগের প্রদুর্ভাব দেখা দিয়েছে এবং তাদের চিকিৎসা চলছে। ক্ষয়ক্ষতির হিসাব প্রাথমিকভাবে দাঁড় করানো গেলেও এখনো পুরো শেষ হয়নি। বন্যার্তদের সাহায্যে সাড়ে চার লাখ টাকা ও ৪ মেট্রিক টন চাল ইতিমধ্যে বিতরণ করা হয়েছে। কৃষি পুনবাসনের জন্য চাহিদা পত্র মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করা হয়েছে।

 রিপোর্ট »বুধবার, ১০ অক্টোবার , ২০১২. সময়-১১:৩৩ pm | বাংলা- 25 Ashin 1419
WEBSBD.NET
রিপোর্ট শেয়ার করুন  »
Share on Facebook!Digg this!Add to del.icio.us!Stumble this!Add to Techorati!Seed Newsvine!Reddit!
EDITOR;ABUL HOSSAIN LITON, DHAKA OFFICE; NAHAR MONZILl,BOX NAGAR,DEMRA,DHAKA.OFFICE;MAHESHPUR,JHENAIDAH,BANGLADESH. Copyright © 2011 » All rights reserved http/shesherkhobor.com, MOB: 8801711245104,Email:shesherkhobor@gmail.com 
☼ Provided By  websbd.net  » System  Designed by HELAL .
GO TOP