Breaking »

Warning: include(/home/shesherk/public_html/wp-content/themes/shesherkhobor/single-sidebar.php): failed to open stream: No such file or directory in /home/shesherk/public_html/wp-content/themes/shesherkhobor/single.php(2) : eval()'d code(1) : eval()'d code on line 2

Warning: include(): Failed opening '/home/shesherk/public_html/wp-content/themes/shesherkhobor/single-sidebar.php' for inclusion (include_path='.:/usr/lib/php:/usr/local/lib/php') in /home/shesherk/public_html/wp-content/themes/shesherkhobor/single.php(2) : eval()'d code(1) : eval()'d code on line 2

শৈত্যপ্রবাহে উত্তরাঞ্চলে নষ্ট হচ্ছে বোরো বীজতলা

শেষের খবর ডেস্ক : শৈত্যপ্রবাহে উত্তরাঞ্চলে বোরোর বীজতলা নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। ঘন কুয়াশা আর ঠান্ডা বাতাসের কারণে বীজতলার চারা লালচে আকার ধারণ করছে।  এই চারা নষ্ট হওয়ায় দুশ্চিন্তায় পড়েছেন কৃষকরা। এই অবস্থা চলতে থাকলে এবারে বোরো ধানের লক্ষমাত্রা অর্জিত হবে কিনা তা নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে।

গত এক সপ্তাহ থেকে দিনাজপুর সহ উত্তরাঞ্চলে শৈত্য প্রবাহ শুরু হয়েছে। আরো বেশ কয়েকদিন স্থায়ী হবে এ শৈত্য প্রবাহ। সন্ধ্যা থেকে ঘনকুয়াশায় ঢাকা পড়ছে অঞ্চল আর তা স্থায়ী হচ্ছে দুপুর ১২ টা পর্যন্ত,সূর্যের দেখা মিলছে না। এ অবস্থায়  বোরো ধানের বীজতলা কোল্ড ইনজুরিতে আক্রান্ত হচ্ছে। বীজতলার বীজ লালচে হয়ে যাচ্ছে। যে হারে বীজতলা নষ্ট হচ্ছে তাতে করে বোরো চষের যে লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত না  হওয়ারও আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।
কৃষি সমপ্রসারণ অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, চলতি মৌসুমে উত্তরাঞ্চলের ১৬ জেলায় ১৬ লাখ ১১ হাজার ১৮ হেক্টর জমিতে বোরো আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। এর মধ্যে রাজশাহী অঞ্চলে ৮ লাখ ৪৬ ৩৯৮ হেক্টর এবং রংপুর অঞ্চলে ৭ লাখ ৭৪ হাজার ১২০ হেক্টর। উল্লিখিত পরিমাণ জমি থেকে চলতি মৌসুমে ৬৫ লাখ ৪৫ হাজার ৮৭৩ মে.টন বোরো ধান উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।
কৃষকরা জানান, বেশি দামে বীজ কিনে সেই বীজ যদি সঠিকভাবে না হয় তাহলে তাদের আর কোনো উপায় থাকবে না। তারা আরো বলেন, এমনিতে বিদ্যুৎ সার ও ডিজেলের দাম বাড়ার কারণে আমাদের বোরো আবাদ করতে বাড়তি টাকা গুনতে হবে তার উপর কুয়াশার কারণে বীজতলা যদি নষ্ট হয়ে যায় তাহলে মরার উপর খাঁড়ার ঘা । এভাবে শীত আরো কয়েকদিন থাকলে সব বীজতলা নষ্ট হয়ে যাবে। তখন একদিকে যেমন সময়  যাবে অন্যদিকে তেমনি চারা সংকটে কঠিন সমস্যায় পড়তে হবে কৃষকদের।
একই এলাকার কৃষক আলফাজ উদ্দিন আহম্মেদ বলেন, যেভাবে ঘনকুয়াশা আর ঠান্ডা বাতাস বইছে কৃষি সমপ্রসারণ অধিদপ্তর সূত্র জানায়, চলতি কুয়াশা আর শৈত্য প্রবাহের জন্য কৃষকদের জন্য কি করনীয় তা কৃষকদের মাঝে জানানোর জন্য উপজেলা কৃষি কর্মকতাদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। সূত্র জানায়, কৃষকদের এখন যে জিনিষটি করা প্রয়োজন তাহলো পলিথিন দিয়ে বীজতলা ঢেকে রাখতে হবে। তিনি বলেন, দুপুর ১২ টার দিকে একবার পলিথিন তুলে বিকেল ৫ টার দিকে আবারও ঢেকে দিতে হবে। এই অবস্থা চলবে যতদিন না পর্যন্ত ঘনকুয়াশা না কাটে। তিনি বলেন, এই ভাবে বীজতলার পরিচর্যা নিলে বীজতলার তেমন ক্ষতি হবে না।

 রিপোর্ট »শুক্রবার, ২৩ ডিসেম্বার , ২০১১. সময়-১০:২৬ pm | বাংলা- 9 Poush 1418
WEBSBD.NET
রিপোর্ট শেয়ার করুন  »
Share on Facebook!Digg this!Add to del.icio.us!Stumble this!Add to Techorati!Seed Newsvine!Reddit!
EDITOR;ABUL HOSSAIN LITON, DHAKA OFFICE; NAHAR MONZILl,BOX NAGAR,DEMRA,DHAKA.OFFICE;MAHESHPUR,JHENAIDAH,BANGLADESH. Copyright © 2011 » All rights reserved http/shesherkhobor.com, MOB: 8801711245104,Email:shesherkhobor@gmail.com 
☼ Provided By  websbd.net  » System  Designed by HELAL .
GO TOP